ওয়াইফাই আসলে কি ?

admin

Administrator
Staff member
Jul 14, 2020
50
6
8
ওয়াইফাই আসলে কি wifi.jpeg
আজকাল অফিস-আদালত,বাসা বাড়ি, স্কুল কলেজ ক্যাম্পাস এর মত আরো সকল স্থানে Wi-Fi একটা বিশেষ জায়গা দখল করে নিয়েছে। Wi-Fi হলো IEEE 802 স্ট্যান্ডার্ড ফ্যামিলির একটি তারবিহীন নেটওয়ার্ক প্রটোকল, যা বিভিন্ন ডিভাইসে ইন্টারনেট অ্যাক্সেস দেয়ার জন্য লোকাল এরিয়ার নেটওয়ার্ক হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। সহজ ভাষায় Wi-Fi হলো তারবিহীন একটি প্রযুক্তি যা রেডিও তরঙ্গ ব্যবহার করে হাইস্পিডের ইন্টারনেট এবং নেটওয়ার্ক সুবিধা প্রদান করে থাকে ।


Wi-Fi যার পূর্ণরুপ হলো- ওয়্যারলেস ফিডালিটি (Wireless Fidelity), WiFi আবিষ্কার করা হয়েছিল এবং গ্রাহকদের জন্য প্রথম উন্মুক্ত করা হয়েছিল 1997 সালে। 1999 সাল থেকে একে বাসা বাড়ি তে ব্যবহার এর জন্য অনুমতি পায়। WiFi নেটওয়ার্ক একটি তারবিহীন নেটওয়ার্ক। এখানে প্রেরক এবং প্রাপকের মাঝে রেডিও ফ্রিকোয়েন্সির মাধ্যমে সংযোগ স্থাপন করা হয় । যখন কোনো অ্যান্টেনায় একটি রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি কারেন্ট সরবরাহ করা হয় তখন একটি বৈদ্যুতিক ক্ষেত্র সৃষ্টি হয় যা বিভিন্ন স্থানে এটিকে প্রসারিত বা বিস্তার করতে সক্ষম হয়


যেকোনো তারবিহীন নেটওয়ার্ক এর ভিত্তি হলো অ্যাক্সেস পয়েন্ট। এর প্রাথমিক কাজ হলো একটি তারবিহীন সিগন্যালকে সম্প্রচার করা যাতে যেকোনো কম্পিউটার বা ডিভাইস এই সিগন্যাল কে শনাক্ত করে অ্যাক্সেস পয়েন্ট এর সাথে সংযোগ স্থাপন করতে পারে এবং তারবিহীন নেটওয়ার্কে যুক্ত হতে পারে। এক কথায় বলতে গেলে ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে তথ্য বা ডেটা ট্রান্সমিটার এবং ডিভাইস এর মধ্যে আদান প্রদান হয় । ট্রান্সমিটার ইন্টারনেট থেকে ডেটা সংগ্রহ করে সেটাকে রেডিও সিগন্যালে রূপান্তরিত করে যা ওয়াইফাইযুক্ত ডিভাইস গুলো এই ডেটাকে গ্রহণ করে।


যদিও ওয়াইফাই মোবাইল বা ল্যাপটপ এর মত পোর্টেবল ডিভাইসে ইন্টারনেট অ্যাক্সেস করতে ব্যবহৃত হয় এটি নিজেই একটি রাউডার এর সাথে যুক্ত থেকে ইন্টারনেট অ্যাক্সেস সরবরাহ করে থাকে। ওয়াইফাই নির্দিষ্ট ফ্রিকোয়েন্সির রেডিও তরঙ্গ ব্যবহার করে তথ্য প্রেরণ করে, যা সাধারণত 2.4 Hz-5.00Hz হয়ে থাকে।


পরীসীমা: Open air বা খোলা জায়গায় একটি স্ট্যান্ডার্ড ওয়াইফাই এর টিপিক্যাল রেঞ্জ 100 meter পর্যন্ত । তবে কোনো বিল্ডিং এই সিগন্যালকে প্রতিফলিত করে যার জন্য নেটওয়ার্ক এর সীমা নির্দিষ্ট সীমা থেকে কিছুটা সংকোচিত হয় । এক্ষেত্রে এর পরিসীমা 30-40 meter পর্যন্তই দেখা যায় ।


WiFi এর সুবিধা:

  • Wifi লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্ক এর তুলনায় সস্তা।
  • প্রত্যন্ত অঞ্চল, ঐতিহাসিক অঞ্চল যেখানে তার বা ক্যাবল ব্যবহারের কোনো সুযোগ নেই সেই সকল জায়গায় wifi একটি বিশেষ সুবিধাজনক ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক হিসেবে কাজ করে ।
  • এই নেটওয়ার্ক তারবিহীন হওয়ার একই সাথে অনেকগুলো ডিভাইসে অ্যাক্সেস করা যায়।
  • wifi পণ্যসামগ্রী wifi alliance কর্তৃক সনদপ্রাপ্ত।
  • এটি বিদ্যুত সাশ্রয়ী এবং একে সুলভমূল্যে ক্রয় করা যায়।


Wifi এর অসুবিধাসমূহ:

  • নির্দিষ্ট এলাকা ছাড়া এর কাভারেজ পাওয়া অনেক কঠিন।
  • এর ডেটা স্থানান্তর ধীর সম্পন্ন এবং ডেটা নিরাপত্তা ও কিছুটা ঝুঁকিপূর্ণ ।